যৌনক্ষমতা ধরে রাখার দশটি উপায়

773 Views 0 Comment

পুরুষের যৌনতা একান্ত তার নিজস্ব ক্ষমতা ও ভাবাচিন্তা। সবার ইচ্ছে- অনিচ্ছে, ক্ষমতা, আকর্ষণ একরকম হয় না। এখানে রুচি, সংস্কৃতি, সামাজিক পরিবেশ নির্বিচারে দশটি সম্ভাব্য উপায় বলা হল যা একজনকে দীর্ঘদিন যৌনক্ষমতা ধরে রাখতে সহায়তা করতে পারে।

  • সুন্দর, স্বাভাবিক যৌনক্ষমতর জন্য লম্বা-চওড়া, দশাসই চেহারা দরকার হয় না। অনেক পালোয়ান, মাসলম্যান যৌনক্ষমতার দিক থেকে হাস্যাস্পদ হয়ে থাকে। নীরোগ সুস্থ চেহারার মানুষ, প্রাণখোলা মুনষ স্ত্রী-সঙ্গীকে চরম যৌনআনন্দ ও যৌনপুলক (অর্গাজম) দিতে সক্ষম হয়।
  • অতিরিক্ত মানসিক চাপ, মানসিক উদ্বেগ, অশান্তি, হতাশা যৌন ইচ্ছেই শুধু নয়, যৌনপারদর্শিতা কমিয়ে দেয়। মানসিক চাপ কমান। অযথা দুশ্চিন্তা করবেন না। না হলে শুধু মানসিক ক্ষতিই নয়, অকালে বার্ধক্য এসে যাবে।
  • অতিরিক্ত রক্তচাপ, হার্টের অসুস্থতা স্বাভাবিক সুস্থ যৌনজীবনের ক্ষতি করে। উচ্চরক্তচাপ, হার্টের ওষুধ প্রভৃতি অনেক সময় যৌনক্ষমতা বা যৌন ইচ্ছা কমিয়ে দেয়। যাদের পরিবারে উচ্চরক্তচাপের ইতিহাস আছে তারা উচ্চরক্তচাপ প্রতিরোধের জন্য অতিরিক্ত লবণ, মাছ-মাংস খাওয়া নিয়ন্ত্রণ করবেন। প্রতিদিন সম্ভব হলে হালকা ব্যায়াম করবেন, হাঁটবেন।
  • যাদের বাবা-মা বা পরিবারের ‘ডায়াবেটিস’ আছে তারা সাবধান। ডায়াবেটিস অকাল বার্ধক্য ও যৌনদুর্বলতা ডেকে আনে। অতিরিক্ত মিষ্টি, ভাত খাওয়া পরিহার করুন। ডায়াবেটিস থাকলে খাওয়া-দাওয়া নিয়ন্ত্রণ করবেন। ব্লাডসুগার নিয়ন্ত্রণে রাখার ওষুধ খাবেন। চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন। ডায়াবেটিস আক্রান্ত পুরুষদের যৌনমিলনে স্ত্রীদের সক্রিয় ভূমিকা নেওয়ার দরকার হয়। তাদের কাউন্সিলিং প্রয়োজন।
  • অতিরিক্ত লজ্জা, নারীসুলভ মনোভাব ও আচার-আচরণ পুরুষদের  যৌনমিলনে সক্রিয় ভূমিকা বা উৎসাহ কমিয়ে দেয়। পুরুষদের চারিত্রিক দৃঢ়তা, পুরুষসুলভ ক্ষমতাই শুধু বাড়ায় না, তারা যৌনসঙ্গীকে চরম আনন্দ দিতেও সক্ষম  হয়।
  • স্ত্রী বা যৌনসঙ্গিনীর বিরক্তিকর, একঘেয়ে আচরণ বা তারা যদি মানসিক বা শারীরিক দিক থেকে অসুস্থ হন তাহলে পুরুষের যৌনদুর্বলতা প্রকট হয়ে দেখা দিতে পারে। এই ধরনের স্ত্রীদের স্বামীর প্রতি কর্তব্য থাকে। তার জন্যে কাউন্সেলিং ও করতে হয়। কিন্তু আমাদের দেশের মেয়েদের সামাজিক অবস্থান, ভাবনাচিন্তার মধ্যে তা কতটা ফলপ্রসূ হয় বলা শক্ত। পুরুষেরাই অনেক সময় যৌনদুর্বলতা নিয়ে কথা বলতে লজ্জা পায়। সংকোচ করে। তার জন্য জীবনও দুর্বিসহ হয়ে ওঠে।
  • যৌনতা কোনো পাপ নয় । অনেকে এসব নিয়ে দুর্বল মনের মানুষ হয়ে থাকেন। তারা কথা বলতে ভয় পান। যৌন ইচ্ছা, আবেগ দমন করে রাখতে চান। এর থেকে বোকামি আর  হয় না। যৌন ইচ্ছার কোনো বয়ষ নেই। ৭০-৭৫ বছর বয়স অবধি যৌন ইচ্ছা, আবেগ, আকাঙক্ষা থাকা অস্বাভাবিক নয়। তবে বিকৃতি  আচরণকে কখনোই সমাজ স্বীকৃতি দেয় না। যৌন আবেগ নিয়ন্ত্রণের উপায় অর্থাৎ স্ত্রীর সঙ্গে যৌন মিলনের সুযোগ না থাকলে আত্মরতি বা হস্তমৈথুন করে বীর্যপাত করা খুবই স্বাভাবিক, এর মধ্যে অন্যায় কিছু নেই।
  • কিডনি, মুত্রাশয়, প্রস্টেট গ্ল্যান্ড প্রভৃতির অসুস্থতা বা মূত্রনালীর সংক্রমণ যৌন দুর্বলতার কারণ হয়। এ বিষয়ে চিকিৎসার প্রয়োজন। অবহেলা করা কখনোই উচিত নয়। স্ট্রোক, শিরদাড়ায় আঘাত, পক্ষাঘাত অনেক সময় যৌনক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। অনেক সময় হরমোনঘটিত অসুখ, হাইপোথাইরয়েড যৌনদুর্বলতার কারণ হয়। এই ধরনের অসুস্থতা, প্রতিরোধের পরামর্শ প্রয়োজন।
  • শুধু যৌন সক্ষম শরীর নয়, যৌনসক্ষম  মস্তিষ্কও প্রয়োজন। গানবাজনা, সিনেমা প্রভৃতি বিনোদনও প্রয়োজন। যে পুরুষ প্রেমিক মনের অধিকারী, যার মনে নারীদের প্রতি প্রেম, ভালোবাসা থাকে, যারা নারীর মর্যাদা রাখে, তাদের ইচ্ছা-অনিচ্ছাতে মূল্য দেয়, তারা সারা জীবনই সুন্দর, সতেজ মনের অধিকারী হয়। যৌনমিলন শুধু শরীরের মিলন নয়, মনের আবেগ, ইচ্ছাকে পূরণ করার উপায়। বিরক্তিকর, একঘেয়ে, সদা অভাবী মন কখনও যৌনসক্ষমতা হতে পারে না। তাই মনকেও সুন্দর, ‍সুস্থ করতে হবে। তবেই চরম যৌনআনন্দ উপভোগ করা যাবে।

  • সৌজন্যে: ‘সুস্বাস্থ্য’ – কলকাতা থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় স্বাস্থ্য বিষয়ক ম্যাগাজিন
0 Comments

Leave a Comment