রুট ক্যানাল হল দাঁতের ব্যথা মুক্তির চিকিৎসা

492 Views 0 Comment
রুট ক্যানাল হল দাঁতের ব্যথা মুক্তির চিকিৎসা

দাঁতের সমস্যায় আর.সি.টি একটি বহুল ব্যবহুত চিকিৎসা পদ্ধতি। সাফল্য যদিও অনেকটাই চিকিৎসকের দক্ষতা আর কুশলতার ওপর নির্ভরশীল তথাপি সারা বিশ্বে আজ একটি বহুল প্রচলিত চিকিৎসা হিসাবে পরিচিত। প্রথমেই বলে রাখা ভালো যে আর.সি.টি চিকিৎসা দাঁতের ব্যথা নির্মূল করার জন্য।

দাঁতের গঠনপ্রণালী অনেকটা শরীরের বাকি অনেক অঙ্গ-প্রতঙ্গের মতোই, অর্থাৎ কোষকলার সমষ্টি। দাঁতের সবথেকে বাইরের অংশটি হল এনামেল যা একটি ক্যালসিয়াম জাত যৌগ দ্বারা প্রস্ত্তুত। তার নীচে থাকে ডেন্টিন এবং তারও নীচে থাকে পাল্পগহ্বর। যার ভিতরে থাকা নার্ভ এবং রক্তপ্রবাহ দাঁতকে সজীব রাখে এবং পুষ্টি প্রদান করে।

আর.সি.টি চিকিৎসা বা রুট ক্যানাল ট্রিটমেন্ট তখনই শুরু হয় যখন দাঁতের সংক্রমণ হতে পারে নিম্নলিখিত কারণগুলি থেকে—

  • দাঁতের ক্যারিস যাকে সাধারণ মানুষ দাঁতে পোকা লাগা বলে।
  • দাঁতের কোনো অংশ ভেঙে গেলে।
  • দাঁতের পার্শ্ববর্তী অংশে কোনো আঘাত পেলে।
  • দাঁতের ও মাড়ির রোগ থাকলে।

এই সকল কারণ দাঁতের অভ্যন্তরীণ গঠনতন্ত্রকে প্রভাবিত করে ব্যাক্টেরিয়ার আক্রমণের দ্বারা। ক্রমশ সেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। ফলস্বরূপ দাঁতে প্রচন্ড ব্যথা, অভ্যন্তরীণ অংশ হতে পুঁজ বার হওয়া, এমনকী দাঁতের গোড়া অবধি ফুলে যেতে পারে। এমতাবস্থায় দাঁতের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রথমেই সংক্রমণটিকে পরীক্ষা করেন এবং সংক্রমণের প্রকোপ অনুযায়ী করেন এবং সংক্রমণের প্রকোপ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ওষুধ এবং এক্স-রে করার পরামর্শ দেন। এরপর করা হয় সংশ্লিষ্ট দাঁতের চিকিৎসা করে না। কেননা রোগীর দাঁতটি তখনও অবশ আছে।

দাঁতের রুট এবং রুট ক্যানাল অংশকে সংক্রমণের উৎস থেকে মুক্ত করার পর তাতে অ্যান্টিসেপটিক অর্থাৎ সংক্রমণ প্রতিরোধক ওষুধ দেওয়া হয়। এবং সবশেষে দাঁতের সংক্রশন মুক্ত, ফাঁকা অংশটি ভর্তি করা হয় একটি ‘থার্মোপ্লাস্টিক’ ‘গুটা পার্চা (Gutta Percha) দ্বারা। এরপর ফিলিং মেটিরিয়াল দিয়ে ভর্তি করা হয় জায়গাটি।

এ প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো যে, আর.সি.টি হওয়া দাঁতে ক্রাউন অবশ্য প্রয়োজনীয়। কারণ ক্রাউন না লাগালে দাঁতটা ভেঙে যেতে পারে। রুট ক্যানাল করা দাঁতে ক্রাউন বর্মের মতো সুরক্ষা প্রদান করে তাকে সুদৃঢ় করে এবং মুখশ্রী বজায় রাখে, চিবিয়ে খেতৈ সাহায্য করে। আর.সি.টি চিকিৎসা পদ্ধতি যা দাঁত চিকিৎসায় এক বহুল ব্যবহুত পদ্ধতি যা দাঁত তোলার ক্ষেত্রে অনেক সময় এক বিকল্প পথের দিশারী।

সৌজন্যে: ‘সুস্বাস্থ্য’ – কলকাতা থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় স্বাস্থ্য বিষয়ক ম্যাগাজিন

0 Comments

Leave a Comment